মঙ্গলবার , ২১ জানুয়ারি ২০২০
Home » ব্রিটেনের সংবাদ » ৪০ বছরের অর্জন ধ্বংস: টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলে বাংলা ভাষার কবর হচ্ছে

৪০ বছরের অর্জন ধ্বংস: টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলে বাংলা ভাষার কবর হচ্ছে

Image may contain: 1 person

কে এম আবুতাহের চৌধুরী:

প্রায় ৪০ বছর আগে আমাদের মুরব্বীরা বাংলা স্কুল সহ কমিউনিটি স্কুল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।প্যারেন্টসদের এ অবদানকে কাউন্সিল স্বীকৃতি দিয়ে কমিউনিটি ল্যাঙ্গুয়েজ প্রজেক্টকে অনুদান প্রদান করে ও প্রায় ১০০ শিক্ষক নিয়োগ করে।এ প্রজেক্টের আওতায় প্রায় দেড় লক্ষ ছাত্র ছাত্রী বাংলা,আরবী,সোমালী,চাইনিজ সহ ১১টি ভাষায় শিক্ষা গ্রহণ করে।সাবেক মেয়র লুৎফুর রহমানের আমলে এ প্রজেক্টের আওতায় ১.২ মিলিয়ন পাউণ্ডের বাজেট ছিলো।বর্তমান মেয়র আসার পর এ বাজেট ৬০০হাজার পাউণ্ডে নিয়ে আসে।জিসিএসই বাংলা বন্ধ করে দেয় ।গত মেয়র নির্বাচনের আগে চেষ্টা করা হয়েছিলো বাংলা স্কুল সহ সব ভাষা শিক্ষার ক্লাস বন্ধ করে দেওয়ার জন্য।কিন্তু নির্বাচনী ফায়দা নেওয়ার জন্য এবং কমিউনিটির আন্দোলনের মুখে কাউন্সিল কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি।লেবার পার্টির যে দু’জন কাউন্সিলার বাংলা স্কুল রাখার পক্ষে প্রস্তাব ও সমর্থন দিয়েছিলো তাদের সাসপেণ্ড করা হয় ।কিন্তু গত ১৮ই ডিসেম্বর মেয়র জন বিগসের নেতৃত্বে কাউন্সিল তাদের কেবিনেট মিটিং এ বাংলা স্কুল সহ সব ভাষা শিক্ষার ক্লাস বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।যার ফলে ২ হাজার ছাত্র ছাত্রী ভাষা শিক্ষা থেকে বন্চিত হবে এবং প্রায় ১০০জন শিক্ষক চাকুরীচ্যুত হবেন।আমাদের ৪০ বছরের অর্জন ধ্বংস হলো।কেবিনেট সভায় কোন বাঙালী কাউন্সিলার এ সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেনি।বরং একজন সাদা কাউন্সিলার বিরোধিতা করেছে।
যখন কাউন্সিলে কম সংখ্যক বাঙালী কাউন্সিলার ছিলো তখন বাংলা স্কুল গুলো সাহায্য পেয়েছিলো।মেইনস্ট্রীম স্কুলের নাম হয়েছিলো ওসমানী,বঙ্গবন্ধু,শাপলা,কবি নজরুল ইত্যাদি।বাংলা ভাষায় রাস্তার নাম হয়েছিলো হ্যানবারী,ব্রিকলেন,হিনেজ,প্রিন্সলেট স্ট্রীট ইত্যাদি।কিন্তু আজ এত বাঙালী কাউন্সিলার ও দুইজন এমপি থাকার পরও বাঙালী সমাজের চোখের সামনে বাংলা স্কুলও সব ভাষা শিক্ষার ক্লাস চিরতরে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।
বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ও কিছু প্যারেন্টস তার প্রতিবাদ করে যাচ্ছেন।কিন্তু টাওয়ার হ্যামলেটস বারার লক্ষাধিক লোক নীরব।
আমাদের জনপ্রতিনিধিরা আমাদের গলায় চুরি চালাচ্ছেন।সমাজের বিরাট ক্ষতি করছেন।অনেকে কাউন্সিলের ভাতা দিয়ে জীবিকা নির্বাহ করার কারনে সমাজের স্বার্থকে গুরুত্ব দিচ্ছেন না। মায়ের ভাষা বাংলা রক্ষার জন্য বাংলার দামাল ছেলেরা বুকের লাল টাটকা রক্ত ঢেলে দিয়েছিলো। কিন্তু আজ কোথায় সেই বীর জাতির ভূমিকা।দয়া করে জেগে ওঠো হে কমিউনিটি।চল টাউন হল ঘেরাও করি।মুষ্টিমেয় দালাল আর তাদের চামচাদের শক্তি বেশী না জনগণের শক্তি বেশী তা দেখিয়ে দেই।
আসুন ,সবাই ঐক্যবদ্ধ হই ও দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলি।

আরও দেখুন

রাজকীয় দায়িত্ব ত্যাগ ছাড়া উপায় ছিল না-প্রিন্স হ্যারি

বাংলা সংলাপ ডেস্ক: ব্রিটেনের রাজসিংহাসনের দাবিদারদের একজন প্রিন্স হ্যারি জানিয়েছেন, তিনি ‘বিশ্বাসের ওপর ভর’ করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *