বুধবার , ১১ ডিসেম্বর ২০১৯
Home » মুক্ত কলাম » বিশেষ সম্পাদকীয়ঃ মানবতার কল্যাণে আমরা আছি,থাকব

বিশেষ সম্পাদকীয়ঃ মানবতার কল্যাণে আমরা আছি,থাকব

মোঃ মশাহিদ আলী:

নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে বাংলা সংলাপ ৯ বছর পূর্ন করে ১০এ পা রাখল । এরই মধ্যে বাংলা সংলাপ ব্রিটেনের সর্বাধিক প্রচারিত ও পাঠক বিশ্বস্ত একটি পত্রিকা হিসেবে নিজের অবস্থান তৌরী করে নিয়েছে । সৎ,দায়িত্বশীল ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার এক উজ্জ্বল নক্ষত্র হিসেবে সব সময় বাংলা সংলাপের রয়েছে আলাদা বৈশিষ্ট । আমরা অসংখ্য পাঠকের ভালোবাসা ও সমর্থন পেয়েছি। এটি আমাদের আশান্বিত করেছে। একই সঙ্গে দায়িত্ববোধের কথাও স্মরণ করিয়ে দেয়। ৯ বছর পূর্তির এই শুভলগ্নে আমাদের অগণিত পাঠকের পাশাপাশি , বিজ্ঞাপনদাতা,শুভানুধ্যায়ীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানাই।

২০১০ সালের ১২ নভেম্বর বাংলা সংলাপের যাত্রারম্ভে যেসব চ্যালেঞ্জ সামনে ছিল, সেগুলো এখনো আছে। বরং কোনো কোনো ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জ আরও কঠিন হয়েছে। তারপরও আমরা হতোদ্যম হইনি। শুরু থেকে মানবতার কল্যাণে আমাদের লক্ষ্য যে বস্তুনিষ্ঠ ও দায়িত্বশীল সাংবাদিকতা, সৎ সাংবাদিকতা—সেই প্রত্যয়ে এখনো আমরা অবিচল আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকব।

দীর্ঘ এই চলার পথে আমরা ক্লান্ত হয়নি , ক্লান্ত হবোও না ।কারণ C.M. Stunich বলেছিলেন ,“When you start something, make sure that you’re willing to take the time to finish it right because, honey, the work you put into it will be more than worth it in the end. The best things always are.”
আমাদের এই প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে ।আর তার পুরোটাই দাবিদার সুপ্রিয় পাঠকরা । আমাদের শুরুটাই যেমন ছিল সুন্দর তেমনি উপস্থাপনাও ছিল বস্তুনিষ্ঠ ও গঠনমূলক । প্রতিষ্ঠার ১০ম বর্ষ পদার্পনে এসে অতীত দিন গুলো ভাবতে গেলে আমরা আবেগ প্রবণ হয়ে পড়ি; আপনাদের প্রতি শ্রদ্ধা, ভালোবাসা আর কৃতজ্ঞতায় নত হই। কারণ,
বাংলা সংলাপ পাঠকের হৃদয়ে কড়া নাড়ে প্রতি সপ্তাহে । আমাদের উপস্থাপনা এতটাই ব্যতিক্রমী যে কোন পাঠকের হৃদয়ে নাড়া না দিয়ে পারেনা । সামনে এগিয়ে যাবার পথে অনেক কঠিন সময় পাড়ি দিতে হয়েছে আমাদের । খুবই ব্যয়বহুল এই যাত্রা পথের প্রতি
সপ্তাহে আপনাদের সামনে হাজির হওয়াটা ছিল একটা বিশাল চ্যালেঞ্জের ব্যাপার । শত কষ্ট ও প্রতিকূলতা অতিক্রম করে আমরা হাজির হয়েছি আপনাদের সামনে । কারণ পাঠকদের প্রতি আমাদের ভালবাসা ছিল সীমাহীন । আমরা জানি “Challenges in life always seek leaders and leaders seek challenges.” । এটা আমাদের আদর্শিক চ্যলেঞ্জ ।আমরা এগিয়ে যাবো শত প্রতিকূলতা অতিক্রম করে । Chad Bowen said, “Difficult situations create exploitable opportunities for those strong enough to persevere.” ৯ বছরের দীর্ঘ সুগমের পথে আমাদের লেখনি অনেকের আকাংখা পুরণ করতে পারিনি । কারণ আমাদের সীমাবদ্ধতা আছে, ভুলত্রুটিও আমাদের হয়। চরম দুঃসময়েও আমরা যখন এগিয়ে যাচ্ছিলাম তখনও বিভিন্ন মহল থেকে চাপের
সম্মুখিন হতে হয়েছে ।এমনকি পত্রিকাটির প্রকাশনা বাধা গ্রস্থ করতে আমাদেরকে মামলা হামলা হুমকি দিয়ে ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে । এমনও হয়েছে বড় বড় লাগববোয়ালরা যারা এই বাংলা সংলাপ বন্ধ করতে সর্বাত্বক চেষ্টা করেছেন তারা আজ মাঠে নেই । ছিটকে পড়েছেন কতিপয়রা । একমাত্র আপনাদের ভালবাসার শক্তি বলে আমরা এসকল প্রতিকুলতা মোকাবেলা করে এগিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছি ।

প্রিয় পাঠক আমরা নীতি ও আদর্শে বিশ্বাসী । কোন অপশক্তির কাছে মাথা নত করার ব্রতি নিয়ে বাংলা সংলাপের জন্ম হয়নি । বাংলা সংলাপ সব সময় আপোসহীন এবং ভয় ভীতির উর্ধে ।কারণ সত্য কখনো দূর্বল হতে পারেনা । আমরা বিশ্বাস করি, বাংলা সংলাপের শক্তি আপনারা, আমাদের শ্রদ্ধেয় পাঠকেরা। সব সময় বাংলা সংলাপ ব্রিটেন প্রবাসিদের এক নম্বর কাগজ। আমরা আমাদের নীতি ও আদর্শ থেকে বিচলিত হয়নি । আমাদের কলমের মুখে লাগাম টেনে ধরিনি। এই সাহসের মূলেও কিন্তু আপনারাই—আমাদের বিপুলসংখ্যক পাঠক। আপনারা সঙ্গে আছেন বলেই আমরা সাহসী, নিরপেক্ষ, বস্তুনিষ্ঠ, আপসহীন। আপনারা সঙ্গে আছেন বলেই আমরা বিনয়ী। আমাদের চেষ্টা পরিশীলনের, শুদ্ধতার, সুরুচির, সংস্কৃতির। কমিউনিটি মানুষের প্রতি আমাদের যে দায়বোধ, তা থেকে আমরা বিন্দুমাত্র সরে আসিনি, কখনো আসব না। আমাদের সামনে সম্ভাব্য যেসব বিপদ- মানবাধিকার লঙ্ঘনের, বাক্‌স্বাধীনতা সংকোচনের—তার বিরুদ্ধে আমরা সচেতন ও সোচ্চার ছিলাম, আছি, থাকব। অন্যদিকে বিশাল বাংলার মানুষেরা সারা পৃথিবীতে যেসব
অপরূপ সাফল্য দেখাচ্ছেন শিল্পে, উদ্যোক্তা হিসেবে, শিক্ষায়, স্বাস্থ্যে, তথ্যপ্রযুক্তিতে, খেলায়—জীবনের নানা পরিসরে—আমরা সেসব ইতিবাচক খবর সব সময়ই গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশ করেছি, আরও বেশি করে করব। মাতৃভূমি বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে এই দেশের মানুষের শ্রম আর সৃজনশীলতা দিয়ে। পাশাপাশি আছে অনেক দুঃসংবাদও।
চলমান অস্থিরতা ও সহিংসতায় মানুষ আজ উদ্বিগ্ন, উৎকণ্ঠিত, সন্ত্রস্ত। সুশাসনের অভাব, রাজনৈতিক অস্থিরতা, গুপ্তহত্যা, সন্ত্রাস, পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডে অনিরাপদ ও বিপন্ন বোধ করছে মানুষ। সমাজ ও রাজনীতিতে হিংসা-বিদ্বেষ বেড়ে চলেছে। এসব আমাদের উদ্বিগ্ন করে। এসব থেকে মুক্তি পেতে আমরা আমাদের সাধ্যমতো চেষ্টা করে যাব।

এগিয়ে যাচ্ছে পৃথিবী ,যদিও সারা দুনিয়া জুড়ে কখনও কখনও বিরাজ করছে অচলাবস্থা । তারপরও বিজ্ঞানীরা আজ মংগল গ্রহ জয়ের পথে । মানুষ মংগল গ্রহে বসবাস করতে যাচ্ছে ,এই বার্তা আমাদের বিশ্ব জয়ের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিয়েছে ।

প্রিয় পাঠক, প্রতিদিন আপনারা আমাদের প্রতি যে আস্থা দেখান, যে ভালোবাসা আমাদের প্রতিনিয়ত ঋণী করে, ঋদ্ধ করে, তার প্রতিদান আমরা কীভাবে দেব? আমাদের সবারই তো একটাই চেষ্টা, একটাই প্রত্যাশা— ভাল থাকুক প্রিয় মানুষ গুলো ,দুনিয়া জুড়ে ফিরে আসুক শান্তি ।

একই সাথে ব্রেক্সিট চুক্তিকে কেন্দ্র করে ব্রিটেনের রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা ক্রমাগত জটিল থেকে জটিলতর হয়েছে। আমরা আশা করছি আগামী ১২ ডিসেম্বর সাধারন নির্বাচনে ভোটারদের রায়ের মাধ্যমে চলমান অস্থিতিশীলতার অবসান হবে। এক্ষেত্রে নির্বাচনের ভোটে আমাদেরও যতেস্ট দায়িত্ব কর্তব্য রয়েছে। তাই আপনার আমার মুল্যবান একটি ভোট দেশকে ব্রেক্সিট অস্থিরতা থেকে মুক্ত করতে সহায়তা করতে পারে।

সেই সাথে দুনিয়া জুড়ে ভুলুন্ঠিত হচ্ছে মানবতা । সৌদিআরব বাহিনীর নির্বাচার হামলায় প্রাণ হারিয়েছে অসংখ্য ইয়েমেনি শিশু। একের পর এক হামলায় প্রাণ যাচ্ছে সিরিয়ান শিশু সহ দুনিয়া জুড়ে হাজার হাজার নারী -শিশুর। ওদিকে মিয়ানমার বাহিনীর অত্যাচারে প্রাণ হারিয়েছেন অসংখ্য নারী -পুরুষ ও শিশু । নির্যাতিত মিয়ানমার রোহিংগাদের বিশাল এক গুরু দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে বাংলাদেশ বিশ্ব মানবতার এক উজ্জ্বল দৃস্টান্ত স্থাপন করল । এটা আমাদের গর্বিত করে। বাংলাদেশের মত দুনিয়াজুড়ে সকলকে মানবতার পাশে দাঁড়ানো আজ সময়ের দাবি। তাই ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এসে এটাই বলবো “মানবতার কল্যানে আমরা আছি, থাকব ” ।

মোঃ মশাহিদ আলী, সম্পাদক

আরও দেখুন

রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলা: আন্তর্জাতিক আদালতে তথ্য-প্রমাণ নিয়ে বাংলাদেশের দল

বাংলা সংলাপ ডেস্কঃ বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, রোহিঙ্গা গণহত্যার মামলার শুনানিতে মিয়ানমার যাতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *